ইলিশ ডিম
ইলিশ ডিম

ইলিশ ডিম-করলার লটপটি

মাঝে মাঝে চেনা খাবারে ভিন্ন স্বাদের রান্না খাবারের একঘেয়েমি দূর করে। তাই আজ আপনাদের জন্য দেওয়া হলো ভিন্ন স্বাদের করলাভাজির রেসিপি।

ইলিশের ডিমে করলার লটপটি :
উপকরণ : করলা মাঝারি আকারের ২টি, আলু ২টি, ইলিশ মাছের ডিম বড় আকারের ৩টি, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, রসুন বাটা আধা চা-চামচ, হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ, কাঁচামরিচ ফালি পরিমাণমতো, লবণ স্বাদমতো, তেল পরিমাণমতো।

প্রস্তুত প্রণালি : প্রথমে আস্ত করলা ভালোভাবে ধুয়ে নিন। এরপর লম্বালম্বিভাবে ফালি করে ভেতরের বিচিগুলো ফেলে চৌকো করে কেটে রাখুন। আলুগুলো আস্ত ধুয়ে গোল করে কেটে নিন। খেয়াল রাখুন যেন আলুর টুকরোগুলো পাতলা থাকে। করলা ও আলুর টুকরোগুলোতে লবণ ও হলুদ মাখিয়ে নিন। কড়াইয়ে তেল দিয়ে গরম না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ইলিশের ডিমে লবণ মাখিয়ে সোনালি করে ভেজে তুলুন। ডিমগুলো ছোট ছোট টুকরো করে কেটে নিন। এবার তেলে করলার টুকরোগুলো ঢেলে লাল করে ভাজুন। একইভাবে আলুও ভেজে নিন। ভাজা শেষ হলে তেলের মধ্যে পেঁয়াজ কুচি ও কাঁচামরিচ ফালি দিন, সাথে পরিমাণমতো লবণ দিন। নরম না হওয়া পর্যন্ত ভাজুন। রসুন বাটা দিয়ে আরো ৩০ সেকেন্ড ভাজুন। এরপর কড়াইয়ে ভেজে রাখা করলা, আলু ও ইলিশের ডিম ঢেলে নাড়তে থাকুন। দু’মিনিট ভেজে নিয়ে সুন্দর একটি পাত্রে ঢেলে নিন ইলিশ ডিমে করলার লটপটি। শুকনো মরিচ ভাজা দিয়ে সাজিয়ে গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন।

করলার পুষ্টিগুণ : খেতে তেতো হলেও করলার রয়েছে অসাধারণ পুষ্টিগুণ। প্রতি ১০০ গ্রাম করলায় থাকে ৯২.২ গ্রাম জলীয় অংশ, ২.৫ গ্রাম আমিষ, ৪.৩ গ্রাম শর্করা, ১৪ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম, ১.৮ মিলিগ্রাম আয়রন, ১৪৫০ মাইক্রোগ্রাম ক্যারোটিন। এছাড়া ভিটামিন বি১ ০.০৪ মিলিগ্রাম এবং অন্যান্য খনিজ পদার্থ আছে ০.৯ গ্রাম। এছাড়াও করলায় আছে ভিটামিন সি যা ত্বক ও চুলের জন্য উপকারী। করলা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে। করলা কোষ্ঠ্যকাঠিন্য দূর করে। ক্রিমিনাশক হিসেবেও করলা উপকারী।

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.