ইলিশ মাছের ডিমের ঝোল
ইলিশ মাছের ডিমের ঝোল

ইলিশ মাছের ডিমের ঝোল

আমাদের জাতীয় মাছ ইলিশ মাছের মাথা থেকে শুরু করে প্রতিটি অংশ দিয়েই কোননা কোন মজার রান্না খাওয়ার অভিজ্ঞতা সবারই আছে। কখনো কি ভেবেছেন – বাঙ্গালীর রান্নাঘরে এই ইলিশ মাছ কেন এত আদরনীয়? আমার মনে হয়, এর স্বাদটাই বড় কারন। আমাদের যাদের রান্নাঘরের অভিজ্ঞতা আছে তাঁরা হয়ত বলবেন এই মাছের প্রতিটা অংশ দিয়েই কোননা কোন একটা রান্না করা যায়। সেদিক দিয়ে এই ইলিশ মাছ রাঁধুনীদের কাছে খুবই সাশ্রয়ী একটি মাছ। এই মাছের মাথা, পেটি, ডিম এমনকি কাঁটাকুটা দিয়েও কিছু একটা রান্না করা যায়, এবং সেই রান্নাটা পরিবারের অন্য সদস্যরা মজা করেই খায়।

প্রথম ইলিশের রেসিপি দেই, সময়টা হয়ত ভাল ছিলনা, দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতির কারণে ইলিশ তখন সাধারণের ধরাছোঁয়ার বাহিরে। পাঠকরা কেউ কেউ পছন্দ করলেন না ইলিশের রেসিপি, তাই ইলিশের রেসিপি সিরিজটা তখন বন্ধ রেখেছিলাম। তখন রেসিপিগুলো তুলতে শুরু করেছিলাম, কিছু লেখা হয়েছে, আর একটা লম্বা তালিকা করে ফেলেছি ইলিশের রেসিপির। একসময়ে তালিকাটা আপনাদের মতামতের জন্য দিয়ে দেব।

আজকের এই রেসিপিটা হচ্ছে – ইলিশ মাছের ডিমের ঝোল। ডিমপেটে ইলিশমাছ ধরতে জেলেদের না বলা হয়। তবুও বাজারে ডিমপেটে ইলিশমাছ পাওয়া যায়। আমার ঘরে ছেলে-মেয়েদের খুবই প্রিয় ইলিশের ডিমের রেসিপিগুলো, তাই ওদের বাবা বাজারে গিয়ে ডিমপেটে ইলিশমাছ পেলেই নিয়ে আসতেন। এবার দেখুন রান্নাটি কি ভাবে করবেন

উপকরণঃ

  • ইলিশ মাছের ডিম – ১টা মাছের ডিম (১ কাপ সমপরিমান ডিম,
  • গোল করে টুকরা করা)আলু – ৩ টা মাঝারী,
  • আধা ইঞ্চি কিউব করে কাটাপেঁয়াজ কুচি – ১/২ কাপ
  • আদা বাটা – ১/২ চা চামচ
  • রসুন বাটা – ১ চা চামচ
  • মরিচ গুঁড়া – ১ টেবিল চামচ
  • হলুদ গুঁড়া – ১/২ চা চামচ
  • জিরা বাটা – ১/২ চা চামচ
  • ধনে গুঁড়া – ১/২ চা চামচ
  • কাচামরিচ – ৩/৪ টা (ঝাল বেশি চাইলে আরো বেশি)
  • লবন – পরিমাণ মতো
  • তেল – ২ টেবিল চামচ
  • ধনে পাতা কুচি – ১ টেবিল চামচ
  • পানি – পরিমানমতো

প্রস্তুত প্রণালীঃ

মাছের ডিম হালকাভাবে ধুয়ে ১ ইঞ্চি কিউব করে কেটে নিন। আলু খোসা ফেলে ১/২ ইঞ্চি কিউব করে কেটে নিন। হাঁড়িতে তেল দিয়ে একটু গরম হলে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন, নাড়তে থাকুন, হালকা বাদামী করে ভাজা হলে এবার চুলার আঁচ কমিয়ে সকল মশলা ও পানি দিয়ে সামান্য কষিয়ে নিন। এবার মাছের টুকরা ও ডিম দিয়ে আরো ৫ মিনিট কষিয়ে পরিমানমতো পানি দিন। আলুর কাটা টুকরো গুলো দিয়ে দিন। ঢেকে দিন কিছুক্ষণ রান্না হওয়ার জন্য। ঝোল ফুটতে শুরু করলে কাঁচামরিচ উপরে ছড়িয়ে দিন। এবার ঝোল মাখা মাখা হয়ে এলে ধনেপাতা কুচি দিয়ে নামিয়ে নিন (এসময়ে ধনেপাতা না পেলে বিলেতি ধনেপাতা দিতে পারেন)। পরিবেশনের জন্য তৈরী। গরম ভাতের সাথে আচার সহ খুবই ভাল লাগবে।

 

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.