রুপচাঁদা মাছের শুটকি কিভাবে রান্না করবেন? জেনে নিন।

রুপচাঁদা শুটকি

রুপচাঁদা মাছের শুটকি কিভাবে রান্না করবেন

রুপচাঁদা মূলত সামুদ্রিক মাছ। এই শুটকির কাটা খুবই নরম এবং মজাদার । বাঙালীর কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং সুস্বাদযুক্ত শুটকি হচ্ছে কক্সবাজারের রুপচাঁদা মাছের শুটকি। আমরা সরাসরি জেলেদের কাছ থেকে সংগ্রহ করে শুটকি তৈরি করে থাকি।
লবন ছাড়া এবং ডিডিটি মুক্ত। প্রাকৃতিক উপায়ে রোদে শুকানো হয়, যার ফলে শুটকিতে প্রোটিন এর গুণাগুণ অক্ষুণ্ণ থাকে।
উল্লেখ্য করা যেতে পারে যে, তিন কেজি কাঁচা মাছ শুকালে এক কেজি শুটকি হয়। অতএব এক কেজি শুটকিতে কাঁচা মাছের তুলনায় তিন গুণ বেশী প্রোটিন থাকে।

কি কি উপকরণ লাগবে?

রূপচাঁদা শুঁটকি – ১০০ গ্রাম
টমেটো (কিউব করে কাটা) – ৪টি (মাঝারী)
রসুন বাটা – ১ টে চামচ
আদা বাটা – ১ চা চামচ
জিরা বাটা – দেড় চা চামচ
ধনে গুড়া – ১ চা চামচ
হলুদ গুড়া – ১/২ চা চামচ
মরিচ বাটা – ১ টেবিল চামচ
পেয়াজ কুচি – ১ কাপ
কাঁচামরিচ (ফালি করে কাটা) – ৪/৫ টা
তেল – দেড় কাপ
পানি – দেড় কাপ
লবণ – পরিমাণমতো
ধনেপাতা কুচি – ৩ টে চামচ
চিনি – ১ চিমটা
প্রণালী
প্রথমে শুঁটকি এক ইঞ্চি সাইজের টুকরা করে নিতে হবে। এবার ভাল করে ধুয়ে ২ ঘন্টা পানিতে ভিজিয়ে রাখুন কাটা শুঁটকিগুলো। দুই ঘন্টা পরে ভেজানো শুঁটকি গুলো পানি থেকে তুলে পানি ঝরিয়ে নিন, আর মূল রান্নার জন্য তৈরী হোন –
কড়াইতে তেল দিন, তেল গরম হলে তাতে পেয়াজ কুচি দিন, ভাজতে থাকুন। হালকা বাদামী রঙ ধারণ করলে উপকরণের সব মশলা দিয়ে ৫ মিনিট কষিয়ে নিন। এসময় চুলার আঁচ কমিয়ে রাখুন, নইলে মশলা পুড়ে যাবে। এবার কষানো মসলায় শুঁটকি দিয়ে দিন, এ অবস্থায় আরও ১০ মিনিট রান্না করুন। চুলার আঁচ একটু বাড়াতে পারেন। এবার ১০ মিনিট পর পানি দিয়ে ঢেকে রান্না করুন। কিছুক্ষন পর টমেটো ও কাঁচামরিচ ছেড়ে দিন। চুলার আঁচ কমিয়ে একটু নেড়ে দিন, আবার ঢেকে দিন। এ অবস্থায় আরো কিছুক্ষণ রান্না করুন। মাখামাখা হয়ে আসলে ধনেপাতা ও চিনি ছিটিয়ে পরিবেশন করুন। গরম ভাতের সাথে পরিবেশনে খুবই ভাল লাগবে। কেউ ঝাল পছন্দ করে শুঁটকিতে, ঝাল বাড়িয়ে দিতে পারেন আপনার পছন্দ মত।

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*