লইট্ট্যা শুঁটকী রান্না

রেসিপিঃ লইট্ট্যা শুঁটকী রান্না (এক্সটা এডিশন, বোম্বাই মরিচের কুঁচি)

শুঁটকী মাছ আমি খুব পছন্দ করি! বয়স বাড়ার সাথে সাথে এই পছন্দ যেন আরো আরো গভীরে চলে যাচ্ছে! মুখে এখন ঝাল করে রান্না এই ধরনের খাবার দাবার বেশি ভাল লাগে! যাই হোক, শিশু ও বুড়োদের এও ধরনের খাবার না খাওয়াই ভাল! ঝাল সব সময়েই শরীরের জন্য ক্ষতিকর! তবুও বছরে এক দুইবার চালিয়ে দেয়া যেতে পারে! তবে ঝাল খাওয়ার অভ্যাস করতে পারলে এটা কোন ব্যাপার নয়! আমি এমন অনেককে দেখেছি, ঝাল না হলে উনারা খেতেই পারেন না!

যাই হোক, চলুন, গল্প আর একদিন করা যাবে! আজ একটা শুঁটকি রান্না দেখে ফেলি, সাথে থাকছে বোম্বাই মরিচের ঝাল! তবে শুঁটকী রান্নায় কয়েকটা বিষয় আগেই বলে নেই!
১। শুঁটকী রান্না খোলা কড়াইতেই রান্না করলে ভাল জমে, খুন্তি দিয়ে নাড়াতে হয়।
২। তেলের পরিমান একটু বেশি হতে হয়।
৩। রান্নার সময় রান্নাঘর ছেড়ে যাওয়া উচিত নয়, সামান্য ভুলে রান্না পুড়ে শেষ হয়ে যেতে পারে!
৪। তেলে প্রথমে শুঁটকী একটু ভেঁজে নিলে শুটকীর ঘ্রান কমে যায়।
৫। ঝাল ও লবণের দিকটায় একটু বেশী নজর দিতে হয়।

উপকরন ও পরিমানঃ (ছবিতে পরিমান বেশি আছে তবে আমি এখানে আগের রান্নার পরিমান দিয়ে দিলাম)
লইট্ট্যা শুঁটকীঃ ২০০/২৫০ গ্রাম (টুকরা ছোট বা আপনার ইচ্ছা মত করে নিতে পারেন, পরে ছেঁচে নেয়া হবে)
– রসুন ফালিঃ গোটা ১০/১৫ কোষ
– পেঁয়াজ কুঁচিঃ মাঝারি তিন বা চারটে
– রসূনঃ বাটা, দুই টেবিল চামচ
– হলুদ গুড়া বা বাটাঃ ১ চা চামচের কম (হলুদ কম দিলে রান্নার রঙ ভাল থাকে)
– মরিচ গুড়া বা বাটাঃ ১ চা চামচ (বুঝে শুনে, ঝাল পরিমিত হওয়া জরুরী)
– কাঁচা মরিচঃ ৫/৬ টা (ঝাল বুঝে, দুই দফায়)
– লবনঃ পরিমান মত
– তেলঃ সয়াবিন তেল হাফ কাপের চেয়ে কম (শুঁটকীতে একটু তেল বেশি হলে ভাল হয়, আপনার ইচ্ছা, তবে আমি কম তেল পছন্দ করি কিন্তু দিতে বেশী পড়ে যায়!)
– পানিঃ পরিমান মত

– বোম্বাই মরিচঃ পরিমান মত

প্রনালীঃ (ছবি কথা বলে)

ছবি ১, মুল উপকরন হাতের কাছে নিয়ে নেয়াই উত্তম।

ছবি ২, কড়াইতে তেল গরম করে সামান্য লবন দিয়ে শুঁটকী ভাঁজুন।

ছবি ৩

ছবি ৪

ছবি ৫

ছবি ৬

ছবি ৭

ছবি ৮

ছবি ৯

ছবি ১০

ছবি ১১

ছবি ১২, আগুন মাঝারি আঁচে থাকবে।

ছবি ১৩

ছবি ১৪

ছবি ১৫, আগুন বাড়িয়ে দিন। ঝোল শুকিয়ে যাবে।

ছবি ১৬

ছবি ১৬

ছবি ১৭, ফাইন্যাল লবন স্বাদ দেখুন।

ছবি ১৮, এখানেই শেষ করা যায়!

ছবি ১৯, পরিবেশনা!

ছবি ২০, যারা আরো অধিক ঝাল চাইবেন!

ছবি ২১, বেশী নাড়ানো চলবে না। শুধু মিশিয়েই নামিয়ে নিতে হবে।

ছবি ২২, পরিবেশনা।

সবাইকে শুভেচ্ছা।

 

 

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*