শুটকি রান্নার রেসিপি
শুটকি রান্নার রেসিপি

শুটকি কাহিনী: চট জলদি শিখে নিন কয়েক পদের শুটকি রান্নার রেসিপি

ভর্তা বা ভুনা ছাড়াও শুটকি মাছের কয়েকটি রকমারি স্বাদ খুঁজে পাবেন এবারের রেসিপিগুলোতে। রেসিপি দিয়েছেন জুরানা মাসুদ

রূপচাঁদা শুটকির বিরান

উপকরন

রূপচাঁদা শুটকি ২টি, আলু ছোট কিউব করে কাটা ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, রসুন কুচি ১/৪ কাপ, পেঁয়াজ বাটা ১টা চামচ, রসুন বাটা ১চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১/২চা চামচ, মরিচ গুঁড়া ১চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া ১চা চামচ, তেল ১/৪ কাপ, তেজপাতা ১টি, তেতুলের ক্বাথ ১টা চামচ, ধনে পাতা কুচি ২টা চামচ, লবন পরিমান মত, কাঁচামরিচ ৪-৫টি, ভাজা জিরাগুড়া ১চা চামচ, বেরেস্তা ২টা চামচ।

প্রনালি

রূপচাঁদা শুটকি পরিষ্কার করে ছোট ছোট টুকরা করুন। ফোটানো পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। ভাল করে ধোঁয়া হলে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার শিল পাটায় একটু থেতলে নিন। আলু সিদ্ধ করে হলুদ মেখে তেলে একটু ভেজে রাখুন। কড়াইয়ে তেল গরম করে তেজপাতা, রসুন কুচি ও পেঁয়াজ কুচি দিন। একটু নরম হয়ে এলে পেঁয়াজ বাটা ও আধা কাপ পানি দিন। এবার একে একে হলুদ, মরিচ, ধনিয়া, রসুন বাটা দিয়ে কষিয়ে নিন। কসানো হলে শুটকি ও আলু দিয়ে আর একটু কসিয়ে নিন। লবন পরিমানমত দিন। কসানো হলে ২ কাপ পানি ও তেতুলের ক্বাথ দিয়ে মাঝারি আচে ঢেকে রেখে দিন। ৫ মিনিট পরে কাঁচামরিচ দিয়ে ঢেকে দিন। আচ আর একটু কমিয়ে রাখুন। লবন চেক করুন। পানি কমে তেল উপরে উঠলে ভাজা জিরা ও ধনেপাতাকুচি দিয়ে নামান পরিবেশনের আগে বেরেস্তা উপরে ছড়িয়ে ভাত বা খিচুরির সাথে পরিবেশন করুন রূপচাঁদা শুটকির বিরান।

চিংড়ি শুটকির পাল্টা-ভাজা

উপকরন

চালকুমড়া বা লাউ পাতা ৮-১০টি, চিংড়ি শুটকি ১ কাপ, নারিকেল কোড়ানো আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১/২ কাপ, রসুনের কোয়া ৫-৬টি, আদা কুচি ১টা চামচ, কাঁচামরিচ ৫টি, লবন পরিমান মত, হলুদ ১/২চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া ১/২চা চামচ, মরিচগুঁড়া ১/২চা চামচ, জিরা বাটা ১/২চা, চামচ ধনে গুঁড়া ১/২চা, চামচ নারিকেল দুধ ১/২ কাপ, তেল ২টা চামচ।

প্রনালি

চিংড়ি শুটকি ধুয়ে পরিষ্কার করে রাখুন। প্যানে শুটকি, পেঁয়াজ কুচি, রসুন কোয়া, আদা, নারিকেল কোরা, কাঁচামরিচ ও সামান্য হলুদ দিয়ে হালকা টেলে নিন। এবার লবন দিয়ে বেটে রাখুন। চালকুমড়ার পাতা ভাল করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। দুটি চালকুমড়ার পাতার সোজা পিঠে একটির উপর আর একটি নিন। দুটি বোটা একই দিকে থাকবে। পাতার মাঝখানে ২টা চামচ ভর্তা রেখে চারপাশ থেকে পাতা সুন্দর করে মুড়ে ভর্তা ঢেকে দিন। টুথপিক দিয়ে আটকে দিন। এবার তেলে এপিঠ ওপিঠ হালকা ভেজে নিন। প্যানে তেল দিয়ে পেঁয়াজ বাটা ও বাকি মসলা কসিয়ে নারিকেল দুধ দিন। এবার পাতায় বড়াগুলো দিয়ে ৫ মিনিট রান্না করে নিন। গরম গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন মজাদার পাল্টা-ভাজা।

মেথি টুনা শুটকি

উপকরন

টুনা শুটকি কিউব করে কাটা ১ বা ১/২ কাপ, মেথি গুড়া ১চা চামচ, টমেটো কিউব করে কাটা ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, রসুন কোয়া ৭-৮টি, মরিচের গুঁড়া স্বাদমত, হলুদের গুঁড়া ১/২চা চামচ, ধনিয়া গুঁড়া ১/২চা চামচ, জিরা বাটা ১/২চা চামচ, আদা-রসুন বাটা ১চা চামচ, তেজপাতা ১টি, কাঁচামরিচ ৪-৫টি, তেল ২টা, চামচ লবন পরিমানমত।

প্রনালি

টুনা শুটকি কিউব করে কেটে ফোটানো পানিতে ধুয়ে নিন। হাড়িতে তেল দিয়ে তেজপাতার ফোরন দিয়ে পেঁয়াজকুচি ও রসুন কোয়া দিয়ে কিছুক্ষণ নেড়েচেড়ে নরম হয়ে আসলে একটু পানি দিতে হবে। এবার মেথি ও কাঁচামরিচ ছাড়া একে একে বাকি সব মসলা দিয়ে কসিয়ে শুটকি দিয়ে ১ মিনিট কসাতে হবে। টমেটো দিয়ে মিশিয়ে পরিমানমত পানি দিতে হবে। টুনা শুটকিতে অনেক লবন ও তেল থাকে থাকে। তাই লবন ও তেল পরিমানমত দিন। ফুটে উঠলে ২-৩ মিনিট পর কাচামরিচ ও মেথি দিন। অল্প আচে রান্না করুন। পানি শুকিয়ে ভাজা ভাজা হয়ে এলে নামিয়ে ভাত বা খিচুরির সাথে পরিবেশন করুন মুখরোচক মেথি টুনা।

শুটকির ঝাল খিচুরি

খিচুরির উপকরন

কাটারিভোগ চাল ২ কাপ, ভাজা মুগ ডাল ১ কাপ, হলুদ গুঁড়া ১চা চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১/৩ কাপ, তেজপাতা ২টি, কাঁচামরিচ ফালি ৭-৮টি, লবন পরিমানমত, সরিষার তেল ১/৪ কাপ।

শুটকির উপকরন

লইট্টা শুটকি কিউব করা ১ কাপ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, রসুন কুচি ১/২ কাপ, সরিষা বাটা ১চা চামচ, জিরা বাটা ১/২চা চামচ, মরিচ গুড়া ১চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১/২চা চামচ, ধনে গুঁড়া ১/২চা চামচ, লবন পরিমানমত, তেল ১/৪ কাপ।

অন্যান্য উপকরন

ধনে পাতা ২টা চামচ, পুদিনা পাতা ২টা চামচ, বেরেস্তা ২টা চামচ, ঘি ১টা চামচ।

প্রনালি

শুটকি ভাল করে ধুয়ে নিন। ফোটানো পানিতে ১ মিনিট ফুটিয়ে পানি ঝরান। একটু থেতলে নিন। প্যানে তেল গরম করে পেঁয়াজ ও রসুন দিয়ে নরম হয়ে এলে শুটকি ও অন্যান্য মসলা দিয়ে দিন। ভাল করে কসিয়ে ১/২ কাপ পানি দিন। ঢেকে রান্না করুন। পানি শুকিয়ে গেলে নামিয়ে রাখুন। ডাল ১/২ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখুন। চাল-ডাল ধুয়ে পানি ঝরাতে হবে। খিচুরি রান্না করার হাড়িতে তেল দিয়ে সমস্ত উপকরন দিয়ে মাখিয়ে চুলায় চাপাতে হবে। একটু ভেজে ৫-৬ কাপ পানি দিতে হবে। ফুটে উঠলে খিচুরি নেড়েচেড়ে মাঝারি আচে রান্না করতে হবে। খিচুরির পানি কমে গেলে উপর থেকে অর্ধেক খিচুরি তুলে রান্না করা শুটকি, ধনে পাতা, পুদিনা পাতা ছড়িয়ে দিতে হবে। তুলে রাখা খিচুরি শুটকির উপরে ছড়িয়ে দিতে হবে। উপরে ভাজা পেঁয়াজ ও ঘি দিয়ে দমে রাখতে হবে ১০-১৫ মিনিট। হয়ে গেলে নামিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম শুটকি খিচুরি।

মন্তব্য করুন

(বিঃ দ্রঃ আপনার ইমেইল গোপন রাখা হবে) Required fields are marked *

*